বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় প্রবাসীরা গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছেন। বিনিয়োগবান্ধব বর্তমান সরকার উন্নয়নের যে যাত্রা শুরু করেছে, তা আজ বিশ্বের কাছে অনুকরণীয় হয়ে উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে এখন বিনিয়োগের চমৎকার পরিবেশ বিরাজ করছে। প্রবাসীদের জন্য সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করাসহ নানা ক্ষেত্রে হয়রানি বন্ধ করলে বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য প্রবাসীরাও এখন মুখিয়ে আছেন।

নিউইয়র্কে ইউএস বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স আয়োজিত ইকোনমিক সেমিনারে দেওয়া বক্তব্যে বক্তারা এসব কথা বলেছেন। ‘স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর: অনাবাসী বাংলাদেশিদের অবদান’ শীর্ষক এই সেমিনার ২২ আগস্ট লাগার্ডিয়া ম্যারিয়ট হোটেলের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা মশিউর রহমান। সেন্টার ফর এনআরবির চেয়ারপারসন সেকিল চৌধুরী সেমিনারে কী-নোট স্পিকার হিসেবে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

সেমনারে ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস, জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন, নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনসাল অফিসের কর্মকর্তা, প্রবাসী ব্যবসায়ী, সাংবাদিক ও জনসমাজের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা বক্তব্য রাখেন।

অর্থ উপদেষ্টা তাঁর বক্তব্যে দেশে বিনিয়োগের সম্ভাবনা নিয়ে সরকারের গ্রহণ করা বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরেন এবং তিনি প্রবাসীদের স্বদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান।

প্রবাসী জনসমাজ ও ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, নানা ক্ষেত্রে এখনো জটিলতার সম্মুখীন হয়ে থাকেন প্রবাসীরা। বিমানবন্দর থেকে শুরু করে দেশের অফিস আদালত আরও প্রবাসী বান্ধব করা নিশ্চিত করলে বিদেশে বসবাসরত অনাবাসী বাংলাদেশিরা দেশে বিনিয়োগে বেশি করে আগ্রহী হবেন।

আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক, নিউইয়র্কের সুপারভাইজিং অডিটর ইমতিয়াজ চৌধুরী, ইউএস চার্টার্ড ব্যাংকের অ্যাসোসিয়েট ডিরেক্টর ওয়াসেফ চৌধুরী, ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের ইকোনমিক মিনিস্টার মাহদী হাসান, জাতিসংঘ বাংলাদেশ মিশনের ইকোনমিক মিনিস্টার মাহমুদুল হাসান, নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনসাল অফিসের ডেপুটি কনসাল জেনারেল এস এম নাজমুল হাসান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.